September 27, 2020

Janadarpan

জনদর্পণ জনতার– প্ল্যাটফর্ম

করোনার কারনে এবছর রায়গঞ্জে জৌলুসহীন দূর্গাপূজোর সিদ্ধান্ত উদ্যোক্তাদের

1 min read

নিজস্ব সংবাদদাতা, উত্তর দিনাজপুর : করোনার বাড়াবাড়িতে এবার জৌলুস হারাবে রায়গঞ্জের দুর্গোৎসব। পঞ্চমী থেকে নবমী শহরবাসীর প্যান্ডেল হপিং কার্যত বিশবাঁও জলে পড়ার আশঙ্কা করছেন শহরবাসী। বিগ বাজেট তো দূরের কথা, গত বছরের অর্ধেক বাজেট দিয়েও পূজোর আয়োজনের কথা ভাবছে না কোনও পূজো কমিটি। নিয়ম রক্ষার পূজো আয়োজন করার দিকেই নজর দিচ্ছেন সকলে। পূজো উদ্যোক্তারা জানিয়েছেন, লকডাউন ও করোনার প্রভাবে সমাজের সব স্তরের মানুষের আর্থিক অবস্থার ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। এই অবস্থায় জাঁকজমক ও চাকচিক্য ধরে রেখে পূজোর আয়োজন করা কোনও ভাবেই সম্ভব নয়৷ গত কয়েক বছর থেকেই বাঙালির দুর্গোৎসব এক অন্য মাত্রা নিয়েছিল রায়গঞ্জে। রায়গঞ্জ শহরে আয়োজিত হয় বেশ কয়েকটি বিগ বাজেটের পূজো। থিম পূজা, বিদেশের কোনও মন্দিরের আদল অথবা কাল্পনিক কোনও মন্দির বানিয়ে শহরবাসীকে উপহার দিয়েছেন পূজো উদ্যোক্তারা। আলোকসজ্জা থেকে মন্ডপ ও প্রতিমা, সব ক্ষেত্রেই ছিল চোখ ধাঁধানো জৌলুস। কিন্তু চলতি বছরে পরিস্থিতি সম্পূর্ন আলাদা। করোনার প্রবল আক্রমণে ক্রমেই ফিকে হয়ে যাচ্ছে বাঙালির দুর্গাপূজো। রায়গঞ্জ শহরের কলেজপাড়ার অরবিন্দ স্পোর্টিং ক্লাবের দুর্গোৎসব কমিটির অন্যতম সদস্য সম্রাট বসু বলেন, গত বছরগুলিতে থিম পূজার মধ্য দিয়ে শহরবাসীর মন জয় করলেও চলতি বছরে যা পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে, তাতে করে নিয়ম রক্ষার পূজার আয়োজন করা ছাড়া কোনও উপায় নেই। ক্লাবের নিজস্ব মন্দিরেই দেবীর আরাধনায় ব্রতী হওয়ার পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে। সেইসঙ্গে দুস্থ মানুষদের মধ্যে নতুন বস্ত্র বিতরণ করার উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে। পূজোর জাঁকজমক কমিয়ে নিয়ম রক্ষার পূজো আয়োজন করার কথা জানিয়েছে শহরের অন্যতম বড় পূজো উদ্যোক্তা সুর্দর্শনপুর দুর্গোৎসব কমিটি। উদ্যোক্তাদের বক্তব্য, করোনার প্রভাবে কর্মহীন হয়ে পড়েছেন বহু মানুষ। এই পরিস্থিতিতে পূজার আয়োজন নিয়ে কোনও সিদ্ধান্তই এখনও নেওয়া সম্ভব হয়নি। গত বছরের মতো পূজোর আয়োজন এই বছর করার কোনও সুযোগ নেই। মন্ডপের পুরো মাঠ ফাঁকা রাখা হবে বাচ্চাদের খেলাধুলার জন্য। আলোকসজ্জার আয়োজনও করা হবে না। কোথাও অন্ধকার থাকলে সেখানে টিউব লাইট লাগিয়ে দেওয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You cannot copy content of this page